ads

ad

কথাকাব্য (Tales & Fables), পঞ্চতন্ত্র ও হিতোপদেশ


কথাকাব্য  (Tales & Fables),  পঞ্চতন্ত্র হিতোপদেশ

               সংস্কৃতে গল্পকে বলা হয় কথা। এর দুটি ভাগ—এক শ্রেণীর গল্প মানুষ, দৈত্যদানব প্রভৃতি সম্পর্কিত এবং অন্য শ্রেণীর গল্পগুলি পশুপক্ষী সম্পর্কিত। মানুষ, দৈত্যদানব প্রভৃতি সম্পর্কিত কল্পনাময় কাহিনীগুলিকে ইরেজিতে বলা হয় Tales.  সমাজের  বিভিন্ন স্তরের মানুষের ব্যবহার, কার্যকলাপ  প্রভৃতি বিভিন্ন পশুপক্ষীর উপর আরোপ করে রচিত গল্পগুলিকে ইরেজিতে বলা হয় Fables. ব্যাবহারিক জীবনের উপযোগী নীতি-উপদেশ দানই এর লক্ষ্য Fables সম্বন্ধে Keith বলেছেন--The fable, indeed, is essentially connected with the two branches of science known by Indians as the Nītiśāastra and the Arthaśāstra, which have this in common as opposed to the Dharmaśātra that they are not codes of morals, but deals with man's action in practical politics and conduct of the ordinary affairs of everyday life and intercourse.

সংস্কৃত সাহিত্যের উল্লেখযোগ্য  Tales 
সোমদেবের  কথাসরিৎসাগর,  শিবদাসের বেতালপঞ্চবিংশতি, চিন্তামণি ভট্টের শুকসপ্ততি, বিদ্যাপতির পুরুষপরীক্ষা,  কালিদাসের নামে প্রচলিত সিংহাসনদ্বাত্রিংশিকা প্রভৃতি।  

সংস্কৃত সাহিত্যের উল্লেখযোগ্য Fables— 
বিষ্ণুশর্মার পঞ্চতন্ত্র, নারায়ণশর্মার হিতোপদেশ, গুণাঢ্যের বৃহৎকথা, ক্ষেমেন্দ্রের বৃহৎকথামঞ্জরী, বুদ্ধস্বামীর শ্লোকসংগ্রহ প্রভৃতি।  

পঞ্চতন্ত্র
     এটি fables শ্রেণীর রচনা। এর মূল চরিত্র বিভিন্ন পশুপাখি। এরা মানুষের ভাষায় কথা বলে। পৃথিবীর প্রায় ৫০টি ভাষায় ২০০-এর বেশী সংস্করণে পঞ্চতন্ত্র প্রকাশিত হয়েছে। খ্রিষ্টীয় ষষ্ঠ শতকের প্রথামার্ধে পহ্লবী ভাষায় এর অনুবাদ প্রকাশিত হয়। যে মূল গ্রন্থ থেকে ঐ অনুবাদ প্রকাশিত হয়েছিল তা বর্তমানে লুপ্ত। গ্রীক, ল্যাটিন, হিব্রু, স্প্যানিশ, জার্মান, ডাচ্‌, হাঙ্গেরী,  তুর্কী, মালয়ী প্রভৃতি ভাষায় পঞ্চতন্ত্রের অনুবাদ হয়েছিল।
‘তন্ত্র’ মানে গল্পসংগ্রহ। এতে পাঁচটি তন্ত্র বা পরিচ্ছেদ আছে বলে এর নাম পঞ্চতন্ত্র। এই তন্ত্রগুলি হল—মিত্রভেদ, মিত্রপ্রাপ্তি, কাকোলূকীয়, লব্ধপ্রণাশ ও অপরীক্ষিতকারক।
  লেখক কথামুখে জানিয়েছেন—দাক্ষিণাত্যের মহিলারোপ্য নগরের রাজা অমরশক্তির মূর্খপুত্রদের
নীতিশাস্ত্রে পারদর্শী করে তোলার জন্য সভাপণ্ডিত বিষ্ণুশর্মা এই গ্রন্থ রচনা করেন। মূল রচনা গদ্যে নিবদ্ধ, মাঝে মাঝে নীতি-উপদেশমূলক শ্লোকও আছে।

মিত্রভেদ—এই পরিচ্ছেদের উল্লেখযোগ্য গল্পগুলি হল— পিঙ্গলক নামক সিংহ, সঞ্জীবক নামক বৃষ, করটক ও দমনক নামক শৃগাল, খরগোশ ও সিংহের গল্প, মূর্খ কচ্ছপ ও গোপালক, বক ও কাকের গল্প প্রভৃতি।

মিত্রপ্রাপ্তি--এই পরিচ্ছেদের উল্লেখযোগ্য গল্পগুলি হল— সন্ন্যাসী ও ইঁদুর, ব্রাহ্মণ ও ব্রাহ্মণী, লোভী শৃগাল প্রভৃতি গল্প।

কাকোলূকীয়--এই পরিচ্ছেদের উল্লেখযোগ্য গল্পগুলি হল— কাক ও পেঁচা, খরগোশ ও হাতী, ব্রাহ্মণ ও তিন ধূর্ত, ব্রাহ্মণ ও চোর, সাপ ও ব্যাঙ্‌ প্রভৃতি গল্প।

লব্ধপ্রণাশ--এই পরিচ্ছেদের উল্লেখযোগ্য গল্পগুলি হল— বানর ও কুমীর, শৃগাল ও সিংহ প্রভৃতির গল্প।  

অপরীক্ষিতকারক--এই পরিচ্ছেদের উল্লেখযোগ্য গল্পগুলি হল— সন্তানকামী ব্রাহ্মণের গল্প এবং ব্রাহ্মণ ও নকুলের গল্প।

মূল্যায়ন--পঞ্চতন্ত্রের ভাষা সহজ, সরল ও অনাড়ম্বর। এখানে নীতি-আদর্শের ভাবনা শিল্পসম্মতভাবে বিন্যস্ত হয়েছে। গল্পগুলিতে শুধুমাত্র ন্যায়-নীতি, ত্যাগ-সততা প্রভৃতি আদর্শ প্রচারই মুখ্য উদ্দেশ্য নয়, পশুপাখির রূপকে মানুষের মহত্ত্ব, ভণ্ডামি, শঠতা, হৃদয়হীনতা প্রভৃতি গুণাগুণ পরোক্ষভাবে ব্যক্ত হয়েছে। গল্প কখনও গল্পমাত্র, কখনও বা ন্যায়-নীতি বা আদর্শ প্রচারের বাহন, কখনও আবার সাহিত্যগুণ নীতিকথার সুষ্ঠু সমন্বয়। পঞ্চতন্ত্রের মূল্যায়ন প্রসঙ্গে Dr. Dasgupta বলেছেন—‘It is without reason, therefore that the work enjoyed and still enjoys such unrivalled popularity as a great story-book in so many different times and lands

হিতোপদেশ
      বাংলার রাজা ধবলচন্দ্রের সভাকবি নারায়ণ এর রচয়িতা। লেখক পঞ্চতন্ত্রের রচনারীতির আদর্শ অনুসরণ করেছেন। গ্রন্থটি চারটি অধ্যায়ে বিভক্ত। এগুলি হল—মিত্রলাভ, সুহৃদ্ভেদ, বিগ্রহ ও সন্ধি। হিতোপদেশের প্রথম দুই অধ্যায়ের বেশীর ভাগ গল্পই  পঞ্চতন্ত্র থেকে গৃহীত। তৃতীয় অধ্যায়ের গল্পগুলির সঙ্গে পঞ্চতন্ত্রের গল্পগুলির মিল থাকলেও বৈচিত্র্য অনেক আছে। নারায়ণ কামন্দকীয় নীতিসারের দ্বারা অনেক প্রভাবিত হয়েছেন। তাঁর গল্পগুলির সঙ্গে Arabian nights গল্পের বেশ মিল আছে। এই গল্পগুলির উপর মহাভারত, জাতক ও কথাসরিৎসাগরের গল্পের প্রভাবও দেখা যায়।   
মিত্রলাভ—এই অংশে ৮টি কথা আছে। প্রধান প্রধান গল্পগুলি হল—লঘুপতনক নামক কাক, চিত্রগ্রীব নামক কপোত, হিরণ্যক নামক ইঁদুর, বৃদ্ধ বাঘ ও লোভী পথিক, ইঁদুর ও সন্ন্যাসী, ভৈরব নামক ব্যাধ, বীরসেন নামক রাজা প্রভৃতি গল্প।    
     
সুহৃদ্ভেদ-- এই অংশে ৯টি কথা আছে। প্রধান প্রধান গল্পগুলি হল— পিঙ্গলক নামক সিংহ, সঞ্জীবক নামক বৃষ, করটক ও দমনক নামক শৃগাল, মহাবিক্রম সিংহ, ঘণ্টাকর্ণ রাক্ষস, বীরবিক্রম রাজা, বায়সদম্পতী প্রভৃতির গল্প

বিগ্রহ এই অংশেও ৯টি কথা আছে। প্রধান প্রধান গল্পগুলি হল— হিরণ্যগর্ভ নামক রাজহাঁস, বিলাস নামক রজক, হাস ও কাক, নীল শৃগাল, চূড়ামণি নামক ক্ষত্রিয় প্রভৃতি গল্প।

সন্ধি-- এই অংশে ১২টি কথা আছে। প্রধান প্রধান গল্পগুলি হল— সঙ্কট ও বিকট নামক হাস, মহাতপা মুনি, কুলীর ও বক, দেবশর্মা নামক ব্রাহ্মণ, সুন্দ ও উপসুন্দ নামক দৈত্য, মন্দবিষ নামক সর্প প্রভৃতি গল্প।

মূল্যায়ন—হিতোপদেশের ভাষা খুবী সহজ, সরল ও আবেদনময়। লেখক কথাচ্ছলে বালকদের নীতি-উপদেশ দান করেছেন। সভ্যতার অগ্রগতি হলেও মানুষের আদিম প্রবৃত্তির খুব একটা পরিবর্তন হয় নি, প্রবঞ্চনা, শঠতা, ভণ্ডামি, ধূর্তামি, নীচতা আগের মতোই আছে। লেখক সেই ব্যাপারগুলিই গল্পের মাধ্যমে বলে দৃষ্টিভঙ্গিকে একটু স্বচ্ছ করার চেষ্টা করেছেন। তাই দেশ-কালের সংকীর্ণ গণ্ডী অতিক্রম করে চিরন্তন মর্যাদায় ভূষিত হয়েছে। নারায়ণের রচনারীতির মূল্যায়ন-প্রসঙ্গে পণ্ডিত A. B. Keith বলেছেনNārāyana's style as intended for instruction in Sanskrit is simple and normally satisfactorily easy. The chief difficulties occur in the verses he looked over. A considerable number of stanzas are probably his own work, and if so he deserves considerable credit for fluent versification’.
------

Comments

Ads

Popular

১. প্রাচীনভারতীয় আয়ুর্বেদশাস্ত্র (Medical Science), ২. বাস্তুশাস্ত্রম্‌ (C-8, Unit II: Scientific and Technical Literature)

বহুল ব্যবহৃত কিছু ইংরেজি শব্দের সংস্কৃত প্রতিশব্দ—

3rd Sem, SEC-1, Usage of words in day-to-day life-1