ads

ad

Process of decision making – XVIII.63 (Gita) etc.




Process of decision making – XVIII.63
(Self-Management in the Gita (Syllabus (SEC-2) 4thSem(Sanskrit)(CBPBU)


इति ते ज्ञानमाख्यातं गुह्याद् गुह्यतरं मया।
विमृश्यैतदशेषेण यथेच्छसि तथा कुरु।। (XVIII.63)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— ইতি তে গুহ্যাৎ গুহ্যতরং  জ্ঞানম্‌ (এই গুহ্য থেকেও গুহ্য তত্ত্বজ্ঞান) ময়া তে আখ্যাতম্‌ (আমি তোমাকে বললাম)। এতদ্‌ (এটা) অশেষেণ বিমৃষ্য (সম্পূর্ণরূপে পর্যালোচনা করে) যথা ইচ্ছসি তথা কুরু (যা ইচ্ছা হয় কর)।

বাংলা অর্থ—  আমি তোমার কাছে এই গুহ্য থেকেও গুহ্যতর তত্ত্বকথা ব্যাখ্যা করলাম, তুমি এটা বিশেষভাবে পর্যালোচনা করে যা ইচ্ছা কর।


Control over senses – II.59, 64

विषया विनिवर्तन्ते निराहारस्य देहिनः।
रसवर्जं रसोऽप्यस्य परं दृष्ट्वा निवर्तते।। (II.59)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— নিরাহারস্য (ইন্দ্রিয় দ্বারা বিষয় উপভোগে অপ্রবৃত্ত) দেহিনঃ (ব্যক্তির) বিষয়াঃ বিনিবর্ততে (বিষয় উপভোগে নিবৃত্ত হয়) [কিন্তু] রসবর্জম্‌ (অভিলাষ ছাড়া, অর্থাৎ বিষয়তৃষ্ণা নিবৃত্ত হয় না); পরম্‌ (পরব্রহ্ম পরমেশ্বরকে) দৃষ্ট্বা (সাক্ষাৎ করে) অস্য (এর), স্থিতপ্রজ্ঞ ব্যক্তির) রসঃ অপি (অভিলাষ) বিনিবর্ততে (নিবৃত্তি পায়)।

বাংলা অর্থ—  ইন্দ্রিয় দ্বারা বিষয়গ্রহণে অপ্রবৃত্ত ব্যক্তির বিষয়োপভোগ নিবৃত্ত হয় বটে, কিন্তু বিষয়তৃষ্ণা নিবৃত্ত হয় না। কিন্তু সেই পরমপুরুষকে দেখে স্থিতপ্রজ্ঞ ব্যক্তির বিষয়-বাসনা নিবৃত্ত হয়।

रागद्वेषविमुक्तैस्तु विषयानिन्द्रियैश्चरन्।
आत्मवश्यैर्विधेयात्मा प्रसादमधिगच्छति।। (II.64)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— রাগদ্বেষবিমুক্তৈঃ তু (কিন্তু অনুরাগ ও বিদ্বেষ থেকে বিমুক্ত) আত্মবশ্যৈঃ (আত্মবশীভূত) ইন্দ্রিয়ৈঃ (ইন্দ্রিয়গুলি দ্বারা) বিষয়ান্‌ চরন্‌ (বিষয়সমূহ উপভোগ করে) বিধেয়াত্মা (সংযতমনা পুরুষ) প্রসাদম্‌ অধিগচ্ছতি (আত্মপ্রসাদ লাভ করেন)।

বাংলা অর্থ—  কিন্তু যিনি বিধেয়াত্মা, অর্থাৎ যার মন নিজের বশবর্তী, তিনি অনুরাগ ও বিদ্বেষ থেকে বিমুক্ত, আত্মবশীভূত ইন্দ্রিয়সমূহ দ্বারা বিষয় উপভোগ করে আত্মপ্রসাদ লাভ করেন।

Surrender of kartṛbhāva –XVIII .13-16;  V.8-9
पञ्चेमानि महाबाहो कारणानि निबोध मे।
सांख्ये कृतान्ते प्रोक्तानि सिद्धये सर्वकर्मणाम्।। (XVIII .13)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— হে মহাবাহো, সর্বকর্মণাং সিদ্ধয়ে (হে মহাবাহো, সকল কর্মের সিদ্ধির জন্য) সাংখ্যে কৃতান্তে (সাংখ্য বা বেদান্ত সিদ্ধান্তে) প্রোক্তানি (বর্ণিত) ইমানি পঞ্চকারণানি (এই পাঁচটি কারণ) মে নিবোধ (আমার কাছ থেকে জান)।

বাংলা অর্থ— হে মহাবাহো, সকল কর্মের সিদ্ধির জন্য পাঁচটি কারণ সাংখ্যসিদ্ধান্তে বর্ণিত আছে, তা আমার কাছ থেকে শোন।

अधिष्ठानं तथा कर्ता करणञ्च पृथग्विधम्।
विविधाश्च पृथक् चेष्टा दैवञ्चैवात्र पञ्चमम्।। (XVIII .14)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— অধিষ্ঠানং (স্থান, দেহ) তথা কর্তা (অহঙ্কার) পৃথগ্‌বিধং করণং (বিবিধ সাধন) বিবিধাঃ পৃথক্‌ চেষ্টা চ (পৃথক্‌ পৃথক্‌ চেষ্টা বা ব্যাপার), অত্র পঞ্চমং দৈবম্‌ এব চ (এইগুলির মধ্যে পঞ্চম দৈব কারণ)

বাংলা অর্থ অধিষ্ঠান বা স্থান, কর্তা, বিবিধ করণ বা সাধন (যন্ত্র), কর্তার অনেক প্রকার চেষ্টা বা ব্যাপার এবং এইগুলির মধ্যে পঞ্চম দৈব কারণ

शरीरवाङ्मनोभिर्यत् कर्म प्रारभते नरः।
न्याय्यं वा विपरीतं वा पञ्चैते तस्य हेतवः।। (XVIII .15)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— নরঃ শরীরবাঙ্মনোভিঃ (মানুষ শরীর, মন ও বাক্য দ্বারা) যত্‌ ন্যায্যং বা বিপরীতং বা (ন্যায্য বা অন্যায্য যে কোন কর্ম) প্রারভতে (আরম্ভ করে), এতে (এই পাঁচটি) তস্য হেতবঃ (তার কারণ)।

বাংলা অর্থ মানুষ শরীর, মন ও বাক্য দ্বারা ন্যায্য বা অন্যায্য যে কোন কর্ম  আরম্ভ করে, এই পাঁচটি তার কারণ।

तत्रैवं सति कर्तारमात्मानं केवलन्तु यः।
पश्यत्यधिकृतबुद्धित्वान्न पश्यति दुर्मतिः।। (XVIII .16)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— তত্র এবং সতি (এইরকম ব্যাপার হলেও), যঃ (যে) কেবলম্‌ (নিঃসঙ্গ, নিরুপাধি) আত্মানম্‌ (আত্মাকে) কর্তারম্‌ পশ্যতি (কর্তা বলে দেখে), অকৃতবুদ্ধিত্বাত্‌ (অসংস্কৃত বুদ্ধির জন্য) সঃ দুর্মতিঃ (সেই দুর্বুদ্ধি) ন পশ্যতি (সত্যকে সম্যক্‌ দর্শন করতে পারে না)।

বাংলা অর্থ বাস্তবিক অবস্থা এইরকম হলে (পূর্বে উক্ত পাঁচটিই কর্মের কারণ হলেও) নিঃসঙ্গ আত্মাকে যে কর্তা বলে মনে করে, তার বুদ্ধি শাস্ত্রাদি জ্ঞানের দ্বারা পরিমার্জিত না হওয়ায় সে প্রকৃত তত্ত্ব দেখতে পায় না।

नैव किञ्चित् करोमीति युक्तो मन्येत तत्त्ववित्।
पश्यन् शृण्वन् स्पृशन् जिघ्रन्नश्नन् गच्छन् स्वपन् श्वसन्।। (V.8)
प्रलपन् विसृजन् गृह्णन्नुन्मिषन्निमिषन्नपि।
इन्द्रियाणीन्द्रियार्थेषु वर्तन्त इति धारयन्।। (V.9)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— যুক্তঃ (কর্মযোগে যুক্ত) তত্ত্ববিৎ (তত্ত্বদর্শী পুরুষ) পশ্যন্‌ (দর্শন করে), শৃণ্বন্‌ (শ্রবণ করে), স্পর্শন্‌ (স্পর্শ করে), জিঘ্রন্‌ (ঘ্রাণ গ্রহণ করে), অশন্‌ (ভোজন করে), গচ্ছন্‌ (গমন করে), স্বপন্‌ (ঘুমিয়ে বা স্বপ্ন দেখে), শ্বসন্‌ (নিঃশ্বাস গ্রহণ করে), প্রলপন্‌ (কথা বলে), বিসৃজন্‌ (ত্যাগ করে), গৃহ্ণন্‌ (গ্রহণ করে), উন্মিষন্‌ (উন্মেষ করে), নিমিষন্‌ (নিমেষ করে), অপি (ও) ইন্দ্রিয়াণি (ইন্দ্রিয়সমূহ) ইন্দ্রিয়ার্থেষু (ইন্দ্রিয়বিষয়ে) বর্তন্তে (প্রবর্তিত হচ্ছে)

বাংলা অর্থ কর্মযোগে যুক্ত তত্ত্বদর্শী পুরুষ দর্শন, শ্রবণ, স্পর্শ, ঘ্রাণ, ভোজন, গমন, নিদ্রা, নিঃশ্বাস গ্রহণ, কথন, ত্যাগ, গ্রহণ, উন্মেষ ও নিমেষ প্রভৃতি কার্য করেও মনে করেন—ইন্দ্রিয়গুলিই ইন্দ্রিয়বিষয়ে প্রবর্তিত হচ্ছে, আমি কিছুই করছি না (অর্থাৎ ইন্দ্রিয় দ্বারা কর্ম করলেও যেহেতু কর্তৃত্বাভিমান নেই, সেইজন্য তাঁর কর্মবন্ধন হয় না)।


Desirelessness- II.48; II.55
योगस्थः कुरु कर्माणि सङ्गं त्यक्त्वा धनञ्जय।
सिद्ध्यसिद्ध्योः समो भूत्वा समत्वं योग उच्यते।। (II.48)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— হে ধনঞ্জয়, যোগস্থঃ (যোগে অবস্থিত হয়ে) সঙ্গং ত্যক্ত্বা (ফলাসক্তি ত্যাগ করে) সিদ্ধ্যসিদ্ধ্যোঃ (সিদ্ধি ও অসিদ্ধিতে) সমঃ ভূত্বা ( সম, অর্থাৎ হর্ষ-বিষাদশূন্য হয়ে) কর্মাণি কুরু (কর্ম কর); সমত্বং যোগ উচ্যতে (এইরকম যোগ বলে কথিত হয়)।

বাংলা অর্থ হে ধনঞ্জয়, ফলাসক্তি বর্জন করে, সিদ্ধি ও অসিদ্ধি তুল্য জ্ঞান করে তুমি কর্ম কর। এইরকম সমত্ব-বুদ্ধিকেই যোগ বলে।

श्रीभगवान् उवाच—
प्रजहाति कामान् सर्वान् पार्थ मनोगतान्।
आत्मन्येवात्मना तुष्टः स्थितप्रज्ञस्तदोच्यते।। (II.55)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— শ্রীভগবান্‌ উবাচ (শ্রীভগবান্‌ বললেন)—হে পার্থ, আত্মনি এব (আপনাতেই) আত্মনা (আপনি) তুষ্টঃ (তুষ্ট হয়ে) [যোগী] যদা (যখন) মনোগতান্‌ সর্বান্‌ কামান্‌ (মনোগত সকল কামনা) প্রজহাতি (পরিত্যাগ করেন), তদা (তখন) স্থিতপ্রজ্ঞঃ উচ্যতে (তাঁকে স্থিতপ্রজ্ঞ বলে)।
বাংলা অর্থ শ্রীভগবান্‌ বললেন— হে পার্থ, যিনি মনোগত সকল কামনা ত্যাগ করে আপনাতেই আপনি তুষ্ট থাকেন, তখন  তাঁকে স্থিতপ্রজ্ঞ বলে।


Putting others before self – III.25  
सक्ताः कर्मण्यविद्वांसो यथा कुर्बन्ति भारत।
कुर्याद्विद्वांसस्तथासक्तश्चिकीर्षुर्लोकसंग्रहम्।। (III.25   )

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— হে ভারত, কর্মণি সক্তাঃ (কর্মে আসক্তিযুক্ত হয়ে) অবিদ্বাংসঃ (অজ্ঞ ব্যক্তিরা) যথা কুর্বন্তি (যেমন কর্ম করে), বিদ্বান্‌ অসক্তঃ (জ্ঞানী ব্যক্তি অনাসক্ত হয়ে) লোকসংগ্রহং চিকীর্ষুঃ (লোকের রক্ষার জন্য বা হিতসাধনের জন্য) তথা কুর্যাৎ (সেইরকম কর্মানুষ্ঠান করবেন)।

বাংলা অর্থ  হে ভারত, কর্মে আসক্তিযুক্ত হয়ে অজ্ঞ ব্যক্তিরা যেমন কর্ম করে জ্ঞানী ব্যক্তি অনাসক্ত হয়ে  লোকের রক্ষার জন্য বা হিতসাধনের জন্য সেইরকম কর্ম করবেন।


Gītā: Self management through devotion 
Surrender of ego – II.7 ; IX.27; VIII.7; XI.55 ; II.47

कार्पण्यदोषोपहतस्वभावः
पृच्छामि त्वां धर्मसंमूढचेताः।
यच्छ्रेयः स्यान्निश्चितं ब्रूहि तन्मे
शिष्यस्तेऽहं शाधि मां त्वां प्रपन्नम्।। (II.7)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— কার্পণ্যদোষোপহত-স্বভাবঃ (কার্পণ্যদোষে অভিভূত) ধর্মসংমূঢ়চেতাঃ (ধর্ম সম্বন্ধে বিমূঢ়চিত্ত) অহং (আমি অর্জুন) ত্বাং পৃচ্ছামি (তোমাকে জিজ্ঞাসা করি); যৎ মে শ্রেয়ঃ স্যাত্‌ (যা আমার শ্রেয়) তৎ নিশ্চিতং ব্রূহি (তা নিশ্চিতরূপে বল); অহং তে শিষ্যঃ (আমি তোমার শিষ্য), ত্বাং প্রপন্নম্‌ (তোমার শরণাগত) মাম্‌ শাধি (আমাকে উপদেশ দাও)।

বাংলা অর্থ  (গুরুজনদের হত্যা করে কীভাবে আমি প্রাণ ধারণ করব এইরকম চিন্তাপ্রযুক্ত) চিত্তের দীনতায় আমি (অর্জুন) অভিভূত হয়েছি; প্রকৃত ধর্ম কি এই সম্বন্ধে আমার চিত্ত বিমূঢ় হয়েছে; যা আমার ভাল হয়, আমাকে নিশ্চিত করে তা বল, আমি তোমার শিষ্য, তোমার শরণাপন্ন, আমাকে উপদেশ দাও। (আমাকে তুমি আর সখা বলে মনে করো না, আমি তোমার শিষ্য)।

यत् करोषि यदश्नाति यज्जुहोषि ददासि यत्।
यत् तपस्यसि कौन्तेय तत् कुरुष्व मदर्पणम्।। (IX.27)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— হে কৌন্তেয়, যৎ করোষি (যা কিছু কর), যৎ অশ্নাতি (যা ভোজন কর), যৎ জুহোষি (যা হোম কর), যৎ দদাসি (যা দান কর), যৎ তপস্যসি (যা তপস্যা কর), তৎ (তা) মদর্পণম্‌ কুরুষ্ব (আমাতে অর্পণ করবে)।

বাংলা অর্থ  হে কৌন্তেয়, তুমি যা কিছু কর, যা কিছু ভোজন কর, যা কিছু হোম কর, যা কিছু দান কর, যা কিছু তপস্যা কর, তা সকলই আমাতে অর্পণ কর।

मत्कर्मकृन्मत्परमो मद्भक्तः सङ्गवर्जितः।
निर्वैरः सर्वभूतेषु यः स मामेति पाण्डवः।। (XI.55)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— হে পাণ্ডব, যঃ (যে ব্যক্তি) মৎকর্মকৃৎ (আমার কর্মানুষ্ঠানকারী), মৎপরমঃ (মৎরায়ণ), মদ্ভক্তঃ (আমার ভজনশীল), সঙ্গবর্জিতঃ (স্পৃহাশূন্য), সর্বভূতেষু নির্বৈরঃ (সর্বভূতে বৈরভাবশূন্য), স মাম্‌ এতি (তিনি আমাকে প্রাপ্ত হন)।

বাংলা অর্থ  হে পাণ্ডব, যে ব্যক্তি আমারই কর্মবোধে সকল কর্ম করেন, আমিই যার একমাত্র গতি, যিনি সর্বপ্রকারে আমাকে ভজনা করেন, যিনি সমস্ত বিষয়ে আসক্তিশূন্য, যার কারো উপর শত্রুভাব নেই, তিনি আমাকে পেয়ে থাকেন।

कर्मण्येवाधिकारस्ते मा फलेषु कदाचन।
मा कर्मफलहुतुर्भूर्मा ते सङ्गोऽस्तकर्मणि।। (II.47)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— কর্মণি এব (কর্মেই) তে অধিকারঃ (তোমার অধিকার), কদাচন ফলেষু মা (কখনো কর্মফলে নেই); কর্মফলহেতুঃ (কর্মফলের আশায় কর্মে প্রবৃত্ত) মা ভূঃ (হয়ো না), অকর্মণি (কর্মত্যাগে) তে সঙ্গঃ মা অস্তু (তোমার প্রবৃত্তি না হোক)।

বাংলা অর্থ কর্মেই তোমার অধিকার, কর্মফলে কখনো তোমার অধিকার নেই। কর্মফল যেন তোমার কর্মপ্রবৃত্তির কারণ না হয়, কর্মত্যাগেও যেন তোমার প্রবৃত্তি না হয়।

Abandoning frivolous  debates – VII.21, IV.11; IX.26

यो यो यां यां तनुं भक्तः श्रद्धयार्चितुमिच्छति।
तस्य तस्याचलां श्रद्धां तामेव विदधाम्यहम्।। (VII.21)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— যঃ যঃ ভক্তঃ (যে যে ভক্ত) শ্রদ্ধয়া (শ্রদ্ধাযুক্ত হয়ে) যাং যাং তনুম্‌ (যে যে দেবমূর্তি) অর্চিতুম্‌ ইচ্ছতি (অর্চনা করতে ইচ্ছা করেন) তস্য (তার) তাম্‌ এব (সেই দেবমূর্তি-বিষয়ক) অচলাং শ্রদ্ধাম্‌ (অচল শ্রদ্ধা) বিদধামি (আমি বিধান করি)।

বাংলা অর্থ যে যে সকাম ব্যক্তি ভক্তিযুক্ত হয়ে শদ্ধা সহকারে যে যে দেবমূর্তি অর্চনা করতে ইচ্ছা করেন, আমি (অন্তর্যামিরূপে) সেই সকল ভক্তের সেই সেই দেবমূর্তিতে ভক্তি অচলা করে দিই।

ये यथा मां प्रपद्यन्ते तांस्तथैव भजाम्यहम्।
मम वर्त्मानुवर्तन्ते मनुष्याः पार्थ सर्वशः।। (IV.11)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— হে পার্থ, যে (যারা) যথা (যেভাবে) মাম্‌ প্রপদ্যতে (আমাকে উপাসনা করে), অহম্‌ তান্‌ তথা এব (আমি তাদেরকে সেইভাবেই) ভজামি (অনুগ্রহ করি), মনুষ্যাঃ (মানুষেরা) সর্বশঃ (সর্বপ্রকারে) মম বর্ত্ম অনুবর্তন্তে (আমার পথই অনুসরণ করে)।

বাংলা অর্থ হে পার্থ, আমাকে যে যেভাবে উপাসনা করে, আমি তাকে সেইভাবেই তুষ্ট করি। মনুষ্যগণ সর্বপ্রকারে আমার পথই অনুসরণ করে, অর্থাৎ তারা যে পথই অনুসরণ করুক, সকল পথেই আমাতে পৌঁছতে পারে।

पत्रं पुष्पं फलं तोयं यो मे भक्त्या प्रयच्छति।
तदहं भक्त्युपहितमश्नामि प्रयतात्मनः।। (IX.26)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— যঃ মে (যিনি আমাকে) ভক্ত্যা (ভক্তিপূর্বক) পত্রং পুষ্পং ফলং তোয়ং (পত্র, পুষ্প, ফল, জল) প্রযচ্ছতি (দান করেন) অহং (আমি) প্রযতাত্মনঃ (শুদ্ধচিত্ত ব্যক্তির) ভক্ত্যুপহৃতম্‌ (ভক্তিপ্রদত্ত) তৎ (সেই উপহার) অশ্নামি (প্রীতিপূর্বক গ্রহণ করি)।

বাংলা অর্থ যিনি আমাকে পত্র, পুষ্প, ফল, জল যা কিছু ভক্তিপূর্বক দান করেন আমি শুদ্ধচিত্ত ব্যক্তির ভক্তিপ্রদত্ত সেই উপহার প্রীতিপূর্বক গ্রহণ করি।

Acquisition of moral qualities -  XII.11; XII.13-19

अथैतदप्यशक्तोऽसि कर्तुं मद्योगमाश्रितः।
सर्वकर्मफलत्यागं ततः कुरु यतात्मवान्।। (XII.11)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— অথ এতদ্‌ অপি কর্তুম্‌ (যদি এটাও করতে) অশক্তঃ অসি (অশক্ত হও) ততঃ (তবে) মদ্‌যোগম্‌ (আমাতে কর্মার্পণযোগ) আশ্রিতঃ (আশ্রয় করে) যতাত্মবান্‌ (সংযতচিত্ত হয়ে) সর্বকর্মফলত্যাগং  কুরু (সর্বকর্মফল ত্যাগ কর)।

বাংলা অর্থ যদি এতেও অশক্ত হও, তা হলে আমাতে কর্মার্পণরূপ যোগ আশ্রয় করে সংযতচিত্ত হয়ে সর্বকর্মফল ত্যাগ কর।

अद्वेष्टा सर्वभूतानां मैत्रः करुण एव च।
निर्ममो निरहङ्कारः समसुखदुःखः क्षमी।। (XII.13)
सन्तुष्टः सततं योगी यतात्मा दृढनिश्चयः।
मय्यर्पितमनोबुद्धिर्यो मद्भक्तः स मे प्रियः।। (XII.14)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— সর্বভূতানাম্‌ অদ্বেষ্টা (সকল প্রাণীর প্রতি দ্বেষরহিত), মৈত্রঃ (মৈত্রীভাবাপন্ন), করুণঃ চ এব (এবং দয়াবান্‌), নির্মমঃ (মমত্ববুদ্ধিহীন), নিরহঙ্কারঃ (অহঙ্কারশূন্য), সমদুঃখসুখঃ (সুখে দুঃখে সমচিত্ত), ক্ষমী (ক্ষমাশীল), সততং সন্তুষ্টঃ (সদানন্দ), যোগী (সমাহিত-চিত্ত), যতাত্মা (সংযতস্বভাব), দৃঢ়নিশ্চয়ঃ (দৃঢ়বিশ্বাসী), ময়ি অর্পিতবুদ্ধিঃ (যার মন বুদ্ধি আমাতে অর্পিত), যঃ মদ্ভক্তঃ (এইরকম যিনি আমার ভক্ত), সঃ (তিনি) মে প্রিয়ঃ (আমার প্রিয়)।

বাংলা অর্থ যিনি কাকেও দ্বেষ করেন না, যিনি সকলের প্রতি মিত্রভাবাপন্ন  দয়াবান্‌, যিনি মমত্ববুদ্ধি ও অহঙ্কার-বর্জিত, যিনি সুখে দুঃখে সমভাবাপন্ন, সদা সন্তুষ্ট, সমাহিতচিত্ত, সংযতস্বভাব, দৃঢ়বিশ্বাসী, যার মন-বুদ্ধি আমাতে অর্পিত, এইরকম ভক্ত আমার প্রিয়।

यस्मान्नोद्विजते लोको लोकान्नोद्विजते च यः।
हर्षामर्षभयोद्वेगैर्मुक्तो यः स च मे प्रियः।। (XII.15)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— যস্মাত্‌ লোকঃ ন উদ্বিজতে (যা থেকে লোক উদ্বেগ প্রাপ্ত হয় না), যঃ চ লোকাত্‌ ন উদ্বিজতে (যিনি  অন্য লোক থেকে উদ্বিগ্ন হন না), যঃ হর্ষামর্ষ-ভয়োদ্বেগৈঃ মুক্তঃ (যিনি হর্ষ, অমর্ষ, ভয় ও উদ্বেগ থেকে মুক্ত) সঃ মে প্রিয়ঃ (তিনি আমার প্রিয়)।

বাংলা অর্থ যা থেকে কোন প্রাণী উদ্বিগ্ন হয় না এবং যিনি নিজেও কোন প্রাণীর দ্বারা উত্যক্ত হন না, এবং যিনি হর্ষ, অমর্ষ, ভয় ও উদ্বেগ থেকে মুক্ত, তিনি আমার প্রিয়।

अनपेक्षः शुचिर्दक्ष उदासीनो गतव्यथः।
सर्वारम्भपरित्यागी भक्तिमान् यः स मे प्रियः।। (XII.16)

অন্বয়-সহ শব্দার্থ— অনপেক্ষঃ (যিনি হিংসাদি জয় করেছেন), শুচিঃ (শৌচসম্পন্ন, পবিত্র), দক্ষঃ (অনলস), উদাসীনঃ (পক্ষপাতশূন্য), গতব্যথঃ (মনের পীড়াশূন্য), সর্বারম্ভপরিত্যাগী (সকাম কর্মানুষ্ঠানে উদ্যমহীন), সঃমদ্ভক্তঃ স মে প্রিয়ঃ (তিনি আমার ভক্ত তিনি আমার প্রিয়)।

বাংলা অর্থ যিনি সর্ববিষয়ে নিঃস্পৃহ, শৌচসম্পন্ন, কর্তব্যকর্মে অনলস, পক্ষপাতশূন্য, যাকে কিছুতেই মনঃপীড়া দয়িতা পারে না এবং ফল কামনা ক্রে যিনি কোন কর্ম আরম্ভ করেন না, এইরকম ভক্ত আমার প্রিয়।

----

Comments

Ads

Popular

১. প্রাচীনভারতীয় আয়ুর্বেদশাস্ত্র (Medical Science), ২. বাস্তুশাস্ত্রম্‌ (C-8, Unit II: Scientific and Technical Literature)

3rd Sem, SEC-1, Usage of words in day-to-day life-1

বহুল ব্যবহৃত কিছু ইংরেজি শব্দের সংস্কৃত প্রতিশব্দ—